২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, শনিবার

অবশেষে ৫ দিনের রিমান্ডে মিন্নি

আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার এক নম্বর সাক্ষী ও তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে আজ বুধবার (১৭ জুলাই) আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) প্রাথমিকভাবে রিফাত হত্যায় মিন্নির সংশ্নিষ্টতা পাওয়ায় এই মামলায় তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আজ বুধবার (১৭ জুলাই) বিকেল ৩টার দিকে মিন্নিকে বরগুনা জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তোলা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পুলিশ পরিদর্শক মো. হূমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির বিরুদ্ধে রিমান্ড আবেদন করা হবে। তবে কত দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ সে বিষয়ে কিছু জানান নি এই পুলিশ কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, এর আগে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) সকাল পৌনে ১০টার দিকে সদর উপজেলার নয়াকাটা গ্রামের বাড়ি থেকে মিন্নিকে বরগুনা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সঙ্গে তার বাবাকেও নিয়ে যায় পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের ঘটনার সঙ্গে মিন্নির সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় তাকে এই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। সেইসাথে তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত শরীফকে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ঘটনার পরের দিন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা সাতজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

এ মামলায় পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত সাতজন (ছয়জন জীবিত) ও সন্দেহজনক সাতজন আসামিসহ মোট ১৪ জনকে গ্রেফতার করে। এজাহারভুক্ত গ্রেপ্তার চারজন এবং সন্দেহজনক ছয়জন আসামিসহ মোট ১০ জনকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতার হওয়া এজাহারভুক্ত দুজন এবং সন্দেহজনক একজনসহ মোট তিন আসামিকে আদালতের অনুমতিক্রমে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে এনে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে। এ ছাড়া এই মামলায় পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা করছে পুলিশ।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন