২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, রবিবার

বিশ্বকে বদলে দেয়া ভয়া’বহ সেই ১১ সেপ্টেম্বর আজ!

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ার হা’মলার ১৮তম বার্ষিকী আজ। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ভয়া’বহ সন্ত্রাসী হা’মলা চালানো হয়। এ হা’মলায় প্রায় তিন হাজার মানুষ নি’হত হয়।

এই দিন থেকেই পুরো বিশ্বে সন্ত্রাসের যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে তা এখনো কাটেনি। এমনকি বিশ্বের কয়েকটি দেশে এখনো চলছে যুদ্ধ। সারাবিশ্বে বড় ধরনের পরিবর্তন এনেছে এই ন’রকীয় হা’মলা।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের সকাল বেলার আবহাওয়া ছিলো চমৎকার। মানুষ কর্মস্থলের দিকে যাচ্ছিলেন। সকাল ৮:৪৫ মিনিটে আমেরিকান এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৬৭ বিমানটি প্রায় ২০ হাজার গ্যালন জেট ফুয়েল নিয়ে বিশ্ব বাণিজ্য কেন্দ্র বা ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের নর্থটাওয়ারের ১১০ তলা ভবনের ৮০ তলায় আ’ঘাত করে। সুদৃশ্য ভবনটি মুহূর্তে ধ্বংসস্থুপে পরিনত হয়। মা’রা যায় কয়েকশ মানুষ।

আজকের এই দিনে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টায় সন্ত্রাসীরা চারটি বিমান ছিনতাই করে নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ার বা ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর পেন্টাগনে (স্থানীয় সময় পৌনে ১০টা) হা’মলা চালায়।

হা’মলায় প্রায় এক হাজার কোটি ডলারের সমপরিমাণ সম্পদ ও অবকাঠামো ধ্বংস হয়। সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আল-কায়েদাকে দায়ী করা হয় হা’মলার জন্য।

হা’মলায় সর্বমোট দুই হাজার ৯৯৬ জন নি’হত হন। এর মধ্যে চারটি বিমানে থাকা ১৯ সন্ত্রাসীও ছিল। হা’মলার প্রতিবাদে সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধ শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই যুদ্ধ অব্যাহত আছে।

২০১১ সালের ২ মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে মার্কিন কমান্ডো অভিযানে নিহত হন হামলার পেছনে দায়ী বলে পরিচিত আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেন। কিন্তু যারা হামলার পরিকল্পনা করেছিল, অর্থ ও সরঞ্জাম দিয়ে সহায়তা করেছিল তাদের এখনো বিচারের মুখোমুখি করা সম্ভব হয়নি।

তবে তহবিল দিয়ে সহায়তার অভিযোগে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। মামলাটি বিচারাধীন। কেবল যুদ্ধ নয়, যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপীয় দেশগুলোতে মুসলিম বিদ্বেষও বেড়ে যায়।

ওই ঘটনায় অভিযুক্ত করে আল কায়দা-লাদেনকে নির্মুল করতে আফগানিস্তানে হামলা করলো আমেরিকা। তাতে জঙ্গির চেয়ে বেশি মরলো সাধারণ মানুষ। এর অনেক পরে মরলেন একজন লাদেনও। এবপর আরও লাদেনের জন্ম হলো।

টিকে রইলো আল কায়দা, জন্ম নিলো আইএসসহ বিভিন্ন নানের নামের জঙ্গি সংগঠন। তারা মেতে রইলো পুরনো ধ্বংসলীলায়। হায় ১১ সেপ্টেম্বর ২০০১। ওই একটা দিন যেনো বদলে দিলো গোটা বিশ্বকে।

যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন যুদ্ধে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে ১২ লাখ মানুষ নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে আফগানিস্তানে প্রায় ৮ লাখ ৭৫ হাজার এবং পাকিস্তানে প্রায় ৩ লাখ ২৫ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন।

লিবিয়ায় বেসামরিক নাগরিক ও সৈন্যসহ ৭৭ হাজার মানুষের প্রাণ গেছে। ইরাকে শিয়া-সুন্নি বিরোধ দেখা দেয়। সেই যুদ্ধ গিয়ে পড়ে সিরিয়ায় যা এখনো চলছে।

 

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন