২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, রবিবার

‘মুসলিমরা হবে আমেরিকার দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় জনগোষ্ঠী’

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ইউরোপের মতো আমেরিকায়ও ইসলাম দ্রুত বিকাশমান ধর্ম। ইসলাম ধর্মের জনপ্রিয়তা ও দ্রুত বিকাশে সুদিনের স্বপ্ন দেখছে আমেরিকার মুসলিম সমাজ। বর্তমানে দেশটির মোট জনসংখ্যার মাত্র ১.১ শতাংশ তথা ৩৫ লাখ মুসলিম। ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর হিসাবে তারা তৃতীয় বৃহত্তম।

তবে আশার কথা হলো, দেশটির সমাজবিজ্ঞানীরা বলছেন, ২০৪০ সালে মুসলিমরা হবে আমেরিকার দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় জনগোষ্ঠী। বর্তমানে আমেরিকায় বসবাস মুসলিমদের বেশির ভাগ অভিবাসী। তাদের ১৬ শতাংশই আরব।

মার্কিন এক গবেষণাপ্রতিষ্ঠান বলছে, ইসলাম ধর্মগ্রহণ ও মুসলিম জনসংখ্যা বৃদ্ধির স্বাভাবিক প্রক্রিয়া বর্তমানের মতো অব্যাহত থাকলে ২০৪০ সালে ইহুদিদের পেছনে ফেলে মুসলিমরা হবে দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতি।

সম্প্রতি ওয়াশিংটনভিত্তিক গবেষণাপ্রতিষ্ঠান বিইউ তাদের এক জরিপের ফলাফলে জানিয়েছে, ২০১৭ সালের হিসাব মতে আমেরিকায় মুসলমানের সংখ্যা ছিল ৩৪ লাখ ৫০ হাজার, যা দেশটির মোট জনসংখ্যার ১.১ শতাংশ মুসলমান।

অন্য ধর্মাবলম্বীরা অধিক হারে ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ায় ২০৪০ সালের মধ্যেই ইহুদিদের টপকে আমেরিকার দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ ধর্ম হবে ইসলাম।

আর ২০৫০ সালে আমেরিকায় মুসলমানের আনুমানিক সংখ্যা দাঁড়াবে অন্তত ৮১ লাখ। বর্তমানের চেয়ে যা দ্বিগুণেরও বেশি। তখন মোট জনসংখ্যার ২.১ শতাংশ থাকবে মুসলমান।

প্রতিষ্ঠানটির ২০০৭ সালের জরিপ অনুযায়ী আমেরিকায় মুসলমানের সংখ্যা ছিল ২৩ লাখ ৫০ হাজার। ২০১১ সালে যা বেড়ে হয় ২৭ লাখ ৫০ হাজার।

আমেরিকায় মুসলমানের আলোকিত ভবিষ্যতের অন্যতম নিদর্শন হলো দিন দিন মসজিদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়া। এরই মধ্যে দেশটির বিভিন্ন শহরে অসংখ্য মসজিদ নির্মিত হয়েছে।

শুধু নিউ ইয়র্কেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ২৫৭টি মসজিদ। এ ছাড়া ক্যালিফোর্নিয়াতে ২৫০টি। টেক্সাসে মোট মসজিদ ১৬৬টি। ফ্লোরিডায় মসজিদের সংখ্যা ১১৮। নিউ জার্সিতেও রয়েছে ১১০টি মসজিদ। সূত্র : আল মুরসাল

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন